kashmir-separatistsপাকিস্তানের কাছ থেকে অর্থ সাহায্য নিয়েই কাশ্মীর উপত্যকায় উত্তেজনা ছড়াচ্ছে তারা৷ জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ জেরার মুখে একথা স্বীকার করল হুরিয়ত কনফারেন্স নেতা নইম খান৷ এমনই জানা গিয়েছে এনআইএ সূত্রে৷ জানা গিয়েছে, জেরার সময় এইটি স্টিং ভিডিও চালানো হয়েছিল নইম খানের সামনে৷ এর পরেই জেরার মুখে ভেঙে পড়ে সে৷ স্বীকার করে সমস্ত কিছু৷ যদিও পরে এই স্টিং-কে জাল বলে দাবি করছে এই বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা৷ তবে নইম খানের স্বীকারের খবর শুনেই তাকে দল থেকে বরখাস্ত করেছে হুরিয়ত কনফারেন্স৷ যা স্বীকারের খবরের উপর শিলমোহর বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল৷
পাক অর্থে কাশ্মীরে অশান্তি ছড়াচ্ছে গিলানি, তদন্ত শুরু এনআইএ-য়ের দশ মাস আগে নিরাপত্তা রক্ষীদের সঙ্গে গুলির লড়াইয়ে মৃত্যু হয়েছিল হিজবুল কমান্ডার বুরহান ওয়ানির৷ সেই থেকেই উত্তপ্ত কাশ্মীর৷ প্রায় প্রত্যেক দিনই সেনার সঙ্গে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের লড়াই লেগেই চলেছে৷ প্রাণ হারিয়েছে বহু৷ তবে এই সমস্ত কর্মকাণ্ডই পরিচালিত হয়েছে সীমান্তের ওপাড় থেকে পাক মদতে৷ এতে সাহায্য করেছে কাশ্মীরের বেশকিছু বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা৷ ইতিমধ্যে কাশ্মীরে উত্তেজনা ছড়াতে পাকিস্তানকে সাহায্য করা বেশ কিছু বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতার বিরুদ্ধে তথ্য প্রমাণ সংগ্রহের কাজ শুরু করে দিয়েছে জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ৷
সূত্রের খবর, এনআইএ-র তদন্তের তালিকায় রয়েছে হুরিয়ত নেতা সয়িদ আলি শাহ গিলানি থেকে শুরু করে নইম খান, ফারুক আহমেদ দার, গাজি জাভেদ বাবা সহ একাধিক বিচ্ছিন্নতাবাদীদের নাম৷ তাদের বিরুদ্ধে মূল অভিযোগ পাকিস্তান থেকে অর্থ সাহায্য নিয়ে কাশ্মীরে অশান্ত পরিবেশ তৈরি করা ও কাশ্মীরের নাগরিকদের ভারতে বসেই ভারত বিরোধী কাজে ব্যবহার করা৷ এদের উস্কানিতেই বারবার সেনার দিকে পাথর ছুড়েছে কাশ্মীরের নাগরিকরা, পুরিয়ে দেওয়া হয়েছে স্কুল ও অন্যান্য সরকারি সংস্থা৷