article-2516130-19BE8C9300000578-746_306x423বাংলাদেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষের ওপর সাম্প্রতিক হামলায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে পশ্চিমবঙ্গ কংগ্রেস। গত শনিবার কংগ্রেসের পশ্চিমবঙ্গ প্রেসিডেন্ট অধীর চৌধুরী জানান, তিনি ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে একটি চিঠি লিখেছেন। এছাড়া পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে শেখ হাসিনার সঙ্গে তার সুসম্পর্ককে ব্যবহার করে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।
বিশেষ প্রস্তাব পাসের লক্ষ্যে রাজ্য কংগ্রেসের নির্বাহী কমিটির দুদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত বৈঠকের এক ফাঁকে পশ্চিমবঙ্গের কংগ্রেস প্রেসিডেন্ট অধীর চৌধুরী এ কথা বলেন। ওই বৈঠকে বাংলাদেশের জামায়াতকে মৌলবাদী সংগঠন হিসেবে উল্লেখ করে বলা হয়, এমন মৌলবাদী সংগঠনগুলো বাংলাদেশ থেকে বের হয়ে পশ্চিমবঙ্গে আশ্রয় নিচ্ছে। কংগ্রেসের বিশেষ প্রস্তাবে পশ্চিমবঙ্গ যেন সন্ত্রাসবাদী ও মৌলবাদীদের স্বর্গে পরিণত না হয়, তা দেখতে বলা হয় ক্ষমতাসীন তৃণমূলকে।

অধীর চৌধুরী সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে বলেন, সংখ্যালঘু হিন্দু, খ্রিস্টান, বৌদ্ধ এবং ধর্মনিরপেক্ষ ও উদারমনা নাগরিকদের ওপর বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক শক্তি একের পর এক হামলা চালাচ্ছে। গত শুক্রবার তিনি জানতে পারেন, ঢাকার রামকৃষ্ণ মিশনের হিন্দু পুরোহিতকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে তিনি সুষমা স্বরাজকে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন।

বাংলাদেশে হিন্দুদের ওপর হামলার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিশ্চুপ থাকার বিষয়টি উল্লেখ করে পশ্চিমবঙ্গ কংগ্রেসের প্রেসিডেন্ট অধীর চৌধুরী বলেন, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের সুসম্পর্কের কথা সবারই জানা। আর পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সম্পর্কের কথাও কারো অজানা নয়। এখন পর্যন্ত বাংলাদেশে হিন্দুদের ওপর হামলার বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকে কোনো কার্যকর পদক্ষেপ দেখা যায়নি।