sssssssssssssssssssssssএতদিন জেহাদের নামে ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের হত্যার হুমকি দেওয়ার মতো ঘটনা দেখতে পাওয়া গিয়েছে। কিন্তু এবার যে ঘটনা প্রকাশ্যে এল, জানলে আপনি চমকে উঠবেন। মুম্বইয়ের এক ডাক্তার হুমকি দিলেন, তাঁর ক্লিনিকে কোনও হিন্দু রোগী এলেই তাঁকে হত্যা করবেন! জনৈক ব্যক্তি ফেসবুকে ইসলাম ও পাকিস্তানের বিরুদ্ধে মন্তব্য করায় বেজায় চটেছেন ওই ডাক্তার। সোশ্যাল মিডিয়াতে পাল্টা ওই ডাক্তারের হুমকি, পরের বার ক্লিনিকে কোনও হিন্দু রোগী এলে তাঁকে হত্যা করবেন।
ওই মহিলা ডাক্তারের ফেসবুক পোস্টটির বেশ কয়েকটি স্ক্রিনশট ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। একটি ওয়েবসাইটের দাবি, গত ১৮ই জুন, রবিবার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ চলাকালীন এই ঘটনা ঘটে। কয়েকজন অজ্ঞাতপরিচয়ের ব্যক্তি ওই ডাক্তারের ফেসবুক প্রোফাইলে পাক-বিরোধী কমেন্ট পোস্ট করেন। এতেই ব্যাপক চটে যান ওই মহিলা ডাক্তার। পাল্টা কমেন্টে তিনিও হুমকি দেন, এরপর কোনও হিন্দু রোগী তাঁর ক্লিনিকে ডায়ালিসিস করাতে এলে তিনি সাপোর্ট সিস্টেম খুলে রোগীকে হত্যা করবেন। পাশাপাশি, প্রকাশ্যেই পাক-পন্থী মনোভাবের পরিচয় দেন অভিযুক্ত। তাঁর ওই কমেন্টটির ছবি ভাইরাল হয়ে ওঠে। কয়েকজন ফেসবুক ও টুইটার ইউজার সেই ছবি ইতিমধ্যেই মুম্বই পুলিশের আইটি ডিপার্টমেন্টে পাঠিয়েও দিয়েছেন। সাধারণ মানুষ এখন ওই হাসপাতালে যেতেই ভয় পাচ্ছেন বলে খবর মিলেছে।
তবে পুলিশে অভিযোগ দায়ের হওয়ার পর ওই ডাক্তার এবার উলটো সুর ধরেছেন। তাঁর ল্যাপটপ চুরি গিয়েছে, এমনকী তিনি তাঁর ফেসবুকের পাসওয়ার্ডও মনে করতে পারছেন না বলে দাবি করেছেন ওই মহিলা ডাক্তার। অনেকেই বলছেন, ভারতে ডাক্তাররা নারায়ণ রূপে পূজিত হন। সেই দেশে একজন ডাক্তার কী করে বেছে বেছে হিন্দু রোগীদের হত্যা করার হুমকি দিতে পারেন?